আম মিষ্টি কি-না খোসা দেখেই বুঝবেন যেভাবে

বাজারে গেলেই এখন পাকা মিষ্টি আমের গন্ধ নাকে ভেসে আসে। সেই মিষ্টি আম খাওয়ার লোভে অনেকেই ব্যাগ ভর্তি করে পাকা আম বাসায় কিনে নিয়ে যায়। কিন্তু সেই আম খেতেই যেয়েই ঘটে বিপত্তি! অর্থাৎ মিষ্টি ভেবে যে আম কেনা হয়েছিল তা খেতে মোটেও মিষ্টি নয়। বরং তা টক। এই ধরনের আম কেনা মানে টাকা অপচয় ছাড়া আর কিছুই না।

কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে কেনার সময়ে কী করে বুঝবেন আম মিষ্টি কি না টক? এক্ষেত্রে কিছু ট্রিক্স কাজে লাগাতে পারেন। চলুন জেনে নেয়া যাক-

আম দেখতে কেমন

দেখতে সুন্দর আম, মানে নিটোল চেহারার আম অন্য আমের চেয়ে অনেকটা এগিয়ে থাকবে। দাগমুক্ত এবং ট্যারা-ব্যাঁকা নয়— এমন আম কিনুন। আমের খোসা কুঁচকে গেলেও সেটি কিনবেন না। সেটি মজে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। সবুজ, হলুদ, লাল, সোনালি, কমলা— যেকোনো রঙের আম কিনতে পারেন। রঙের উপর মিষ্টত্ব নির্ভর করে না।

আমের গন্ধ শুঁকে কিনুন

আমটি নাকের কাছে নিয়ে এর গন্ধ নিন। যদি বোঁটার কাছ থেকে মিষ্টি গন্ধ আসে, তবে আমটি কিনতে পারেন। সুমিষ্ট গন্ধওয়ালা আম সাধারণত টক হয় না। যদি তীব্র ঝাঁঝালো বা টক গন্ধ বের হয়, তবে সেই আম কিনবেন না।

খোসা নরম নাকি শক্ত

আমের খোসা হালকা করে টিপে দেখুন। আম যদি পাকা হয়, তবে সেটি নরম হবে। যদি আঙুলের চাপে গর্ত হয়ে যায়, তাহলে সেই আম বেশি পেকে গিয়েছে বা মজে গিয়েছে। এটি কিনবেন না। এর শাঁস কালোও হয়ে গিয়ে থাকতে পারে। একটু শক্ত আম কেনা বরং নিরাপদ। সেগুলি বাড়িতে রেখে দিয়ে পাকাতে পারেন।

কীভাবে পেকেছে দেখে নিন

আম প্রাকৃতিকভাবে পাকা নাকি কার্বাইডে পাকানো— সেটিও দেখে নিন। সবচেয়ে ভালো হয় যদি পরিচিত আম বিক্রেতার থেকে আম কেনেন। তাহলে কার্বাইডে পাকানো আম কেনার ঝুঁকি থাকবে না। একটু কাঁচা আম, বাড়িতে খবরের কাগজে মুড়ে ২-৩ দিন রেখে দিলেও পেকে যায়। তখন দিব্যি খেতে পারেন। সেই আম মিষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।