বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি যেদিন থেকে শুরু হবে

ইদুল আযহা উপলক্ষে ঘরমুখী যাত্রীদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি আগামী ২৪ জুন থেকে শুরু হবে। প্রথম দিনে ৬ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি করবে বাস কাউন্টারগুলো। সোমবার (২০ জুন) রাজধানীর গাবতলীতে বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান কার্যালয়ে এক সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

সোমবার (২০ জুন) রাতে অনার্স অ্যাসোসিয়শনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাকেশ ঘোষ এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আগামী ১০ জুলাই সারাদেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব কুরবানির ইদ উদযাপিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই আগামী ৬ জুলাই থেকে ইদযাত্রার আগাম টিকিট বিক্রি করার সিদ্ধান্ত হয়েছে মালিক সমিতির সভায়।

তিনি আরও বলেন, ৬ জুলাই রাজধানীর গাবতলী ছাড়াও শ্যামলী, কল্যাণপুর এবং মিরপুর মাজার রোডের বিভিন্ন পরিবহনের কাউন্টার থেকে আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হবে। টিকিট স্টক থাকা সাপেক্ষে ইদের আগের যে কোনো দিনের যাত্রার আগাম টিকিট কিনতে পারবেন যাত্রীরা।

বরকত পরিবহনের মালিক বরকত উল্লাহ বলেন, সরকার নির্ধারিত ভাড়ায় টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত হয়েছে সভায়। কাউকে অতিরিক্ত দাম না নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। সরকারি ভাড়ার তালিকা প্রত্যেকটি পরিবহনের কাউন্টারের সামনে ঝুলিয়ে রাখতে বলা হয়েছে। এরপরও কেউ অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত হয়েছে সভায়।

এদিকে, এনা পরিবহনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ বলেন, মালিক সমিতির ডিকলারেশন অনুযায়ী ২৪ জুন থেকে মহাখালী টার্মিনাল থেকেও বিভিন্ন রুটের টিকিট বিক্রি শুরু হবে। তবে বাসের টিকিট সবসময় এভেইলেবল আছে। যাত্রীরা যে কোনো সময় টিকিট কাটতে পারবেন।

সায়েদাবাদ আন্তঃজেলা বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল কালাম বলেন, ২৪ জুন থেকে আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হবে, বাংলাদেশের সকল বাস মালিকদের সংগঠন থেকে আজকে একটা সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানতে পেরেছি। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমরাও সায়েদাবাদের টার্মিনালগুলো থেকে আগাম টিকিট বিক্রি করবো। কেউ আসলে টিকিট নেবে। তবে সায়েদাবাদ টার্মিনাল থেকে বেশির ভাগ যাত্রী আগাম টিকিট নেন না। কয়েক মিনিট পরপর রুট অনুযায়ী বাস ছাড়ে। সবাই উপস্থিত টিকিট কেটে যাত্রা করে। সিলেটগামী কিছু লোক টিকিট নিতো কিন্তু বন্যা পরিস্থিতির কারণে কি হবে তা বুঝতে পারছি না।