আকাশ থেকে মাটিতে পড়ল অদ্ভুত ধাতব খণ্ড, বিকট শব্দে আতঙ্ক এলাকায়

২১ জুন এক মহাজাগতিক ঘটনার সাক্ষী থাকতে চলেছে গোটা বিশ্ব। তার আগে আরো এক র’হস্যজনক মহাজাগতিক ঘটনা ঘটে গেল ভা’রতের রাজস্থানে।

আচ’মকাই আকাশ থেকে বিশাল এক ধাতব খণ্ড এসে পড়ল ম’রু রাজ্যের শহরে। তার তাপে ঝলসে গেল মাটির ঘাস। বিকট শব্দে কেঁপে উঠল গোটা এলাকা।

প্রবল আতঙ্কে ছোটাছুটি শুরু করে দিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। শেষপর্যন্ত র’হস্যজনক ওই বস্তুর খবর পেয়ে স্থানীয় পু’লিশ-প্রশাসন সেটিকে পরীক্ষা করতে পাঠায়।

ঠিক কী’ হয়েছিল?

সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, শুক্রবার ভোরে রাজস্থানের সাঞ্চোর শহরে আচ’মকাই একটি উল্কাপিণ্ডের মতোন র’হস্যময় বস্তু উড়ে এসে পড়ে। তার ফলে বিকট শব্দের সৃষ্টি হয়।

যার আওয়াজ ঘটনাস্থল থেকে প্রায় দু কিলোমিটার দূরে পর্যন্ত শোনা গিয়েছে। এই শব্দে আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা প্রশাসনের দ্বারস্থ হন। খবর পেয়ে হাজির হন প্রশাসনিক ক’র্তারা।

জানা গেছে, ওই বস্তুটির ওজন ছিল প্রায় ২.৭৮ কেজি। মাটিতে প্রায় কয়েক ফুট গভীর গর্ত হয়ে গিয়েছে। তবে বস্তুটি কোথা থেকে এল বা তার উৎপত্তি কোথা থেকে, তা নিয়ে র’হস্য রয়েই গিয়েছে।

ঘটনা প্রসঙ্গে সাব ডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেট ভূপেন্দ্র সিং জানান, “ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেখি, ওই বস্তুপিণ্ডটি তখনও গরম হয়ে রয়েছে। ওটা থেকে তাপ বের হচ্ছে। ঠান্ডা হওয়ার পর একটি জারের মধ্যে ভরে থা’নায় পাঠানো হয়। গোটা এলাকা ঘুরে দেখা হয়েছে।

প্রাথমিক ত’দন্তের পর জানা গেছে, বস্তুটি আকাশ থেকে পড়েছে। মনে করা হচ্ছে ওটা একটা উল্কাপিন্ড। তবে আরো বিস্তারিত জানতে এটা পরীক্ষা করতে পাঠানো হবে।”

তবে সূত্রের খবর, স্থানীয় একটি পরীক্ষাগারে বস্তুটিকে পরীক্ষা করানো হয়েছে। তাতে জানা গেছে জার্মেনিয়াম, প্ল্যাটিনাম, নিকেল ও লোহা দিয়ে বস্তুটি তৈরি হয়েছে।