খেলা থাকলে সৌম্যর কাছে কোয়ারেন্টিনই অনেক ভালো

নভেল করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল দেশের খেলাধুলা। সরকারের নিয়মানুযায়ী খেলোয়াড়রাও ছিলেন কোয়ারেন্টিনে। ধীরে ধীরে স্থবিরতা কেটে স্বাভাবিক হতে যাচ্ছে সবকিছু, ফিরছে মাঠের খেলাও।

এরই মধ্যে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের শ্রীলঙ্কা সফরও নিশ্চিত হয়ে গেছে। এরপরেই প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে সৌম্য মন্তব্য করেন, খেলা থাকলে কোয়ারেন্টিন অনেক ভালো।

এতেই বোঝা যায় দীর্ঘদিনের লকডাউনের সময় ঘরবন্দী জীবন চুটিয়ে উপভোগ করেছেন জাতীয় দলের এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

‘অন্য সবদিক দিয়ে চিন্তা করলে ভালো, শুধু একটা দিক দিয়ে খারাপ কেটেছে। শুধু খেলাটা ছিল না। বাকি জিনিসটা, পরিবারকে সময় দিতে পেরেছি। প্রথম দিকে একটু খারাপ লাগতো, পরের দিকে মানিয়ে নিয়েছি। যদি খেলা থাকতো তাহলে আমার কাছে মনে হয় কোয়ারেন্টিনটা অনেক ভালো ছিল (হাসি)’, ঠিক এভাবেই বলছিলেন সৌম্য।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হন সৌম্য। কথা বলেন বাংলাদেশ দলের শ্রীলঙ্কা সফর নিয়েও। তিনি বলেন, ‘অবশ্যই স্বস্তির যে অন্তত খেলা শুরু হতে যাচ্ছে আমাদেরও। যখন খেলা দেখতাম ইংল্যান্ডের, তো খারাপ  লাগতো অনেক যে, আমরা কবে খেলব। অবশ্য ভালোও লাগত যে, খেলা শুরু হয়েছে। এখন গতকাল শোনা গেল আমাদের ট্যুর কনফার্ম হয়েছে। এটা নিজের কাছে অনেক ভালো লাগছে।‘

তবে সব নিয়ম মানতে হবে কঠোরভাবে, এই বার্তাও দিয়ে দিয়েছেন। কারণ কেউ একজন যদি আক্রান্ত হন তাহলে দলের সবাই আক্রান্ত হবে।

সৌম্য বলেন, ‘নিরাপত্তা একটা বড় ইস্যু। দলও আমাদের একটা পরিবারের মত। সবাই নিজেকে নিরাপদ রেখে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। যেসব নিয়ম থাকবে সেসব মেনেই মাঠে খেলতে নামাটা ভালো হবে বলে আমার কাছে মনে হয়। কারণ যে কোন একজনের মধ্যে যদি চলে আসে বাকিরাও ভুক্তভোগী  হবে। তাই আমার কাছে মনে হয় নিয়মটা মেনে চলাই ভালো।’

বাংলাদেশ দলের শ্রীলঙ্কা সফরের কথা রয়েছে সেপ্টেম্বরের ২৩/২৪ তারিখ। খেলা শুরু হবে এক মাস পর অক্টোবরের ২৪ তারিখ। তিন টেস্ট ম্যাচের সিরিজের সঙ্গে থাকতে পারে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচের সিরিজও।

এক মাস আগে যাওয়াটা সৌম্যর কাছে ভালোই মনে হয়েছে। ‘এটা, প্রথম সব জিনিসই একটু অন্য রকম থাকে। আমার কাছে মনে হয় এক মাসে আগে যদি যায়, তাহলে দলে সবাই অনুশীলনের মধ্যে থাকবে। একটু বেশি হলেও ওই যে বললাম নিরাপত্তার কারণে করতে হবে। এটাও টিম ওয়ার্ক হিসেবেই ধরতে হবে, এই আর কি’, এভাবেই বলছিলেন তিনি।